গুগল প্লাস : ফেসবুক কিলার??

এসে গেছে আলোড়ন সৃষ্টি করা গুগল প্লাস। এখন ফেসবুক ইনবক্স ভর্তি হয়ে যাচ্ছে মেসেজে, “ভাই আমাকেও একটা রিকোয়েস্ট সেন্ড করেন, আমার জিমেইল আইডি এই এই”। গুগল প্লাস বানানোর মূল উদ্দেশ্য আসলে ফেসবুককে ডিফিট দেয়া। গুগল প্লাস কি তা পারবে? দেখে নেয়া যাক।

গুগল প্লাস এখনো সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়নি। তাই চাইলেই এখন অ্যাকাউন্ট খুলে ফেলা যায় না। কেউ একজন ইনভাইট করতে হয়। আমার বন্ধু পারভেজের পাঠানো ইনভাইটে প্রথমে গুগল প্লাসে ঢুকি। দেখেই মনে হয়েছিল, হোমপেজটা খারাপ না, দেখতে অনেকটা ফেসবুকের মতো। বাম দিকে ছবি, মাঝখানে স্ট্রীম (ফেসবুকে যাকে বলে নিউজ ফিড) ডানে সার্কল ইত্যাদি ইত্যাদি। গুগল হোমপেজের মতোই, খুব জৌলুস নেই, কিন্তু দেখতে সিম্পল, দারুণ এবং অনেক ফাস্ট। এই যে, হোমপেজটা দেখতে এরকম…

গুগল প্লাস হোম পেজ

প্রোফাইল :

The Profile Has Less Clutter compared to Facebook

প্রোফাইলে শুধু দেয়া প্রয়োজনীয় তথ্য, যা দিয়ে চেনা যাবে আপনাকে। সিম্পল এবং ফাস্ট। এখানে সে কোথায় থাকে তাও ম্যাপে মার্ক করে দেয়া। কাউকে চিনতে তাই তার বিশাল তথ্যভান্ডার ঘাটতে হবে না আপনাকে।

সার্কল :

গুগল প্লাসে ঢুকে প্রথমেই যেটা আবিষ্কার করলাম, তা হল এখানে ফেসবুকের মত ফ্রেন্ড রিকোয়েস্টের কোন সিস্টেম নেই। (এটা ভাল। আপনার স্যারও আপনার ফ্রেন্ড, ভাইবোন এমনকি বাবাও আপনার ফ্রেন্ড, ভাবতে কেমন লাগে না?) গুগলপ্লাসের আছে সার্কল। আপনার কাজ হল সার্চ করে মানুষ খুঁজে বের করে টেনে এনে একেকজনকে একেকটা সার্কলে ঢুকিয়ে দেয়া। আমি পারভেজকে টেনে এনে ফ্রেন্ডস সার্কলে ঢুকিয়ে দিলাম, পারভেজ এর মাথা সার্কেলে একটা চক্কর দিয়ে থেমে গেল। টিচার্স সার্কলে আমার কয়েকজন শিক্ষককে এড করলাম, আর ফলোয়িং সার্কেলে বিল গেটস আর মার্ক জুকারবার্গকে ঢুকিয়ে দিলাম। এরপরে হোমপেজে এসে দেখি বিল গেটস উইন্ডোজ ৮ নিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন (মাইক্রোসফটের আত্ম-গুণগান আরকি) , একটা কমেন্টও করে ফেললাম। আরেকটা কথা, একটা সার্কল তৈরী করে সেটা ডিলিট করে দিলে যে এনিমেশনটা দেয় সেটা কিন্তু দেখার মতো। দেখতে ভুলবেন না।

চ্যাট :

সোশাল নেটওয়ার্কিং এ চ্যাট থাকবে না এমন কি হয়? না গুগল এ ভুল করেনি, তারা যে চ্যাট দিয়েছে সেটাও দেখার মতই। একদম সিম্পল কিন্তু খুবই ফাস্ট। মাঝেমধ্যে মনে হয় এন্টার চাপার আগেই সেন্ড হয়ে যায়।

ফেসবুক চ্যাটে যেভাবে দেখা যায় আপনার বন্ধু এক মিনিটে বিশবার অনলাইন-অফলাইন হচ্ছে আর অনেক সময় কেউ অনলাইন হয়ে গেলে ত্রুটির কারণে একটানা সাত দিন-সাত রাত অনলাইন থাকছে এমন সুযোগ এখানে গুগল রাখেনি। আর তার ওপর এখানে যোগ হয়েছে ভিডিও চ্যাট আর ভয়েস চ্যাট। আমি দুটোই করে দেখেছি। ভয়েস চ্যাট ক্রিস্টাল ক্লিয়ার, ফোনে কথা বলার চেয়েও পরিষ্কার শোনা যায়।

আমার এক বন্ধুর কথা (নাম বললে রাগ করবে) তার ফোনে আমি বুঝতে পারি না, কিন্তু এখানে পরিষ্কার বুঝতে পেরেছি। আর ভিডিও চ্যাট ডিপেন্ড করে কানেকশনের ওপর, আমি ভালই ভিডিও চ্যাট করেছি, একটু আটকে আটকে চলেছে, কিন্তু কাজ চলে। দোষ আমাদের দেশের ইন্টারনেটের, গুগল প্লাসের না।

হ্যাংআউট :

অসাধারণ+ একটা ফিচার। সহজ ভাষায় বলতে গেলে এটা হল আড্ডা… গ্রুপ ভিডিও চ্যাট। আপনি শুরু করতে পারেন, সিলেক্ট করে দেবেন কারা কারা ঢুকতে পারবে। নাহলে ফ্রেন্ডস আড্ডাতে কোন স্যার ভুলে ঢুকে গেলে আবার সমস্যা। যাই হোক, স্টার্ট করার পর যাদের ঢোকার পারমিশন আছে তারা তাদের হোমপেজে দেখবে আপনি আর আপনার কিছু বন্ধু হ্যাংআউট করছেন বা আড্ডা দিচ্ছেন। তারাও ঢুকে পড়তে পারে। একটা নতুন উইন্ডো ওপেন হবে। অনেকগুলো বক্সে একেকজন বন্ধুকে দেখা যাবে। যে কথা বলবে তার ভিডিও টা মাঝখানে চলে আসবে। চাইলে ভিডিও অফ করে রেখে ভয়েস চ্যাট ও করা যায়, সাথে লিখে লিখে চ্যাট ও করা সম্ভব। এই ফিচারটাতে আমি ১০০ টা + দিলাম। আমরা এখন থেকে গ্রুপ স্টাডি করবো গুগল প্লাসে।

স্পার্কস :

কাজের ফিচার, অনেকটা নিউজের মত। আপনি যেসব বিষয়ে লেটেস্ট আপডেট পেতে চান সেসব আপনার ইন্টারেস্টে এড করে রাখুন। এক ক্লিকে আপডেট পাবেন। আমি রেগুলার চেক করি, নতুন আর্টিকেলগুলো পাই, পড়ি। আমার লাভ হয়, কারণ গুগল সার্চে আমি এগুলো আগে পাইনি।

স্ট্রীম :

ফেসবুক স্ট্যাটাসের সাথে এর একটা পার্থক্য, যে একে টুইটারের মত ব্যবহার করা যায়। পাবলিকভাবে শেয়ার করলে দুনিয়ার যেকোন মানুষ আপনার স্ট্রীম পড়তে পারবে। তাদের কাছে আপনার স্ট্রীম ইন্টারেস্টিং মনে হলে তারা আপনাকে ফলো করতে পারবে। তখন ওই লোক তার হোমপেজে আপনার শেয়ার করা জিনিসগুলো দেখতে পারবে। ফ্রেন্ড রিকোয়েস্টের ঝামেলা নেই। আপনার স্ট্রীম প্রাইভেট দিলে আবার কাজ করবে ফেসবুকের মত। শুধু কাছের সার্কলের মানুষ তা দেখতে পারবে। তার মানে হল গুগল-প্লাস ফেসবুক আর টুইটারকে এক করে ফেলেছে। সফল হবার অনেক সম্ভাবনা।

গুগলপ্লাসে এখন ঢুকি বেশি ফেসবুক থেকে। কে কাকে ট্যাগ করলো, আর কে কে আলতু ফালতু মিনিংলেস স্ট্যাটাস দিলো বসে বসে এগুলো পড়া থেকে স্ট্রীম আর স্পার্কস এ বসে মজার মজার ইন্টারেস্টিং নিউজ পড়া আমার বেশি ভাল লেগেছে। কয়দিন আগেও কাউকে মেসেজ পাঠানো যেত না, এখন যায়। আস্তে আস্তে আরও অনেক ফিচার যোগ হবে। আশা করি গুগল প্লাস ফেসবুককে ডিফিট দিতে পারবে। গুগল প্রোডাক্টসের সাথে ফেসবুকের পেরে ওঠার কথা না যদিও, তবু ফেসবুকও চেষ্টা করে যাচ্ছে। তারা গুগলপ্লাসের দেখাদেখি ফ্রেন্ডস গ্রুপ চ্যাট যোগ করেছে। ভিডিও চ্যাটও যোগ করতে যাচ্ছে। আর গুগলপ্লাস দুই সপ্তাহেই পেয়ে গেছে ১০ মিলিয়ন ইউজার । একমাত্র সময়ই বলে দেবে এই দুই জায়ান্টের যুদ্ধে কে জেতে।

Advertisements

8 thoughts on “গুগল প্লাস : ফেসবুক কিলার??

  1. গুগল প্লাস ট্রাই করে দেখতে চাইলে আপনার জিমেইল এড্রেস কমেন্টস এ দিতে পারেন। আমরা আপনাকে রিকোয়েস্ট পাঠাতে চেষ্টা করবো । আর চাইলে আমাদের সাইটের ঠিকানায় মেইল ও করতে পারেন । ধন্যবাদ ।

  2. ভাই এসব ফালতু জিনিস কথায় পেয়েছেন ? গুগোল + কখন ফেসবুকের সাথে পাল্লা দিয়ে পারবে না। ফেসবুক চ্যাঁটিয়ে কাও কে কিছুক্ষন পর পর অনলাইন অফলাইন দেখালে সেটা তার ইন্টারনেট কানেকশনে প্রবলেম। ইন্টারনেট কানেকশন ভাল না থাকলে গুগোল + য়েও কিছুক্ষন পর পর অনলাইন অফলাইন দেখাবে। এর জন্য কি গুগোল + তার ইন্টারনেট কানেকশন ঠিক করে দিয়ে যাবে যেন কিছুক্ষন পর পর অনলাইন অফলাইন না দেখায় ? আপনার কথা শুনে অনেক মজা লাগলো ভাই। ফেসবুকে যেমন মজা করা জায় গুগোল + এ তেমন কিছুই করা জায় না।

    • আপু এটা একটা ভুল ধারণা যে ফেসবুকের অনলাইন-অফলাইন হওয়াটা ইন্টারনেট কানেকশন প্রবলেম। এটা মূলত: ফেসবুকের চ্যাট সার্ভারে প্রবলেম। আমি দেখেছি অনেক ফাস্ট কানেকশন ব্যবহার করেও অনেকে এই প্রবলেম ফেস করে। গুগলপ্লাসে এরকম সমস্যা আমি একবারও ফেস করিনি। আর ফেসবুকে মজা বেশি বললেন। এর একটাই কারণ। ফেসবুকে ফ্রেন্ডস্ বেশি। গুগল প্লাস আগে সবার জন্য উন্মুক্ত করে দিক, সবাই জয়েন করুক, গ্রুপ চ্যাট করুক, হ্যাংআউট করুক, তারপর দেখা যাবে মজাটা আসলে কোথায়… 🙂

Share your thinking

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s