Future of Robots

Advertisements

Facts about 1 (one)

If you read my post about Zero then you probably can estimate what i am saying today.

So today i am writing about one. All these facts are known by uss all , still i am writing it to just combine them together.

First of all One is a very important number in this world, for mass generation and for mathematicians. Here are some facts.

  • One is the first real positive number in the number line.
  • One is the only number to have the characteristics of prime number but it is not a prime number (May be some day will make a blog post about this.)
  • One is the only number which symbolizes unity.
  • One is the only number which multiplied by any number gives that number.
  • One is the only number which when raised to any power gives same output and that is one (1)
  • One is the only number which when added to any number outputs the next real number in number line (and of course if we substract we will get previous number)
  • If any number is raised to power of 0 the output is same in all the case. The output is again 1.

একটি বাজে-এস্ট দিন (রাত Included)

প্রত্যেকদিন শুরুতেই মেজাজ খারাপ হয় ফেসবুকে ঢুকে। টাইম পাস না, দরকারি আপডেট পেতেই ফেসবুকে ঢুকতে হয়।

আর ফেসবুকে ঢুকলেই মেজাজ চরম । ঢুকেই দেখবো হোমপেজে একজনের জন্মদিন, তার ওয়ালে ২৩জন ফ্রেন্ড লিখেছে। সবার নাম লিস্ট করে দেয়া আছে। আরে ভাই, আমি তো গতরাত ১ টার সময় উইশ করলাম। আমাকে এটা দেখানোর মানে কী????

এর নিচেই ১০-১২ টা ছবি.. অমুক-তমুক তার প্রোফাইল পিকচার চেন্জ করেছে। :@

এর নিচে দেখলাম, কিছু ফালতু প্রশ্ন। একজনের পর একজন উত্তর দিয়ে যাচ্ছে। আরও মজা!! :@

এর কিছু নিচে কিছু বড় বড় ছবি। বন্ধুদের টপ টেন ফ্রেন্ডস টাইপের কিছু ছবি, মানুষ এগুলো করে কি মজা পায় বুঝি না। তার উপরে আছে ফ্যান পেজগুলোর যন্ত্রণা। এতক্ষনেও কোন ফ্রেন্ড এর স্ট্যাটাস আপডেট দেখিনি আমি।

এরপর শুরু হল মেসেজ আসা। অফলাইন হয়ে বসে আছি, তারপরেও ধরে ফেলেছে?? এফফ‍!!! টিকার জিনিসটা আছে না ?? এটার জ্বালায় কোন কিছু করলেই বোঝা যায় যে এই শালা তো অফলাইন বসে বসে আরাম করছে। আরাম সব গেল।

এরপরে ভাবলাম কিছু গেম খেলা যাক। অনেকদিন পোকার খেলি না। ঢুকলাম। ডানদিকে এটা কি রে বাবা। আমার কোন ফ্রেন্ড কোন সময় কী এপ্লিকেশন ব্যবহার করেছে এটা জেনে আমি কী করবো জুকারবার্গ ভাই?? ফেসবুক কি গোয়েন্দাগিরির জায়গা?? ক্রোমের ডানদিকটা এই বিশ্রি জিনিসটা জুড়ে রেখে দিল,  আমি সহ্য করে পোকার খেলতে লাগলাম। বড় মজা, একটাও ভাল কার্ড পড়ছে না। লস খেতে খেতে একটা স্ট্রেইট পড়ে গেল। রেইজ করে ভাল একটা লাভ করে বেরিয়ে পড়লাম। আর ফেসবুক না। এখন গুগল প্লাসে ঢুকি।

ডিজাইনটা সুন্দর। মন ভাল করা। হোমপেজে আমার কিছু বন্ধুর ১০ দিন আগের স্ট্যাটাস আপডেট, আর রিসেন্ট নিউজ হল আমার দল রেড ডেভিলসদের লেটেস্ট আপডেট। খালি ড্র করেই যাচ্ছে। গরুর দল।

গেমসে গেলাম। এখানে ফেসবুকে যা যা আছে সবই আছে, শুধু আরো সুন্দর করে দেয়া, ফেসবুকের চাইতে কম জঞ্জাল, দেখতে ক্লিন। এখন খেলবো Angry Birds!! একটু খেলতেই ল্যাপটপ দিয়ে যেন আগুন বেরোচ্ছে। আরে বাবা, এই গেম খেলতেও আমি আমার ডেস্কটপ ব্যবহার করবো?? মেজাজ তখন পুরা একশডিগ্রি। :@

ধুর যা! খেলবই না গেম। ল্যাপটপ অফফ করে দিলাম। একটু গিটার বাজাই। আবার সমস্যা! আমার আঙুলের নখ বড় হয়ে গেছে। একটু সমস্যা দিচ্ছে। কাটতে হবে। নেলকাটার হাতে নিয়ে দেখি এটা খোলা পার্টগুলো আলগা হয়ে পড়ে আছে! এটা আবার লাগাতে হবে। ধুর কাটবোই না নখ।

এমন সময় ছোটভাই এর আগমন। “ভাইয়া, তোমার ফোন তো চলতেছে না”। কী??? ফোন চলছে না মানে? মানে হল উনি গান শুনছিলেন, হঠাৎ স্ক্রীন সাদা হয়ে আটকে গেছে। আমার হাতে ফোন দিয়ে ও কার্টুন দেখতে বসে গেল। আমি মেমরি কার্ড খুলে চার্জ এ লাগিয়ে দিলাম। পরে যা হয় হবে। :@

সারাদিন গিটার নিয়ে পুরো দিন নষ্ট করলাম। এরপর রাত্রে ঢুকলাম আবার ফেসবুকে। আমার গিটারিস্ট বন্ধু নিজে ইম্প্রোভাইজ করে কিছু রিফ আর লিড পাঠিয়েছে। শোনা উচিৎ। শুনলাম। শুধু ঘ্যারঘ্যার সাউন্ড ই শোনা গেল। কি বাজিয়েছে আগা মাথা বুঝলাম না। তারে মেসেজ দিলাম তোর টোন টেরিবল, ঠিক কর। নাহলে মানুষ মাইর দিবে। (এই টোন নিয়ে কনসার্টে গেলে বাস্তবেই সে আর এক টুকরো অবস্থায় আসতে পারবে না)

এরপর-পরই আম্মুর প্রবেশ। ঘুমের কঠোর আদেশ করে প্রস্থান। অত:পর ঘুমের রাজ্যে খারাপ দিনের সমাপ্তি, আগামি ভাল দিনের আশায়।

গেম রিভিউ : পোর্টাল ২

ফিজিক্স যদি আপনার প্রিয় সাবজেক্ট হয়, আর আপনার মাথায় যদি পাগলামি বুদ্ধি গিজগিজ করে, তাহলে এই গেমটি আপনার জন্যে নিয়ে এসেছি রিভিউ সহ। এ গেমের লেভেল ডিজাইনার টিম আমার মতে ডেভেলপমেন্টের পরের এক মাস বিছানায় পড়ে ছিল মাথার ব্যথায়। এরকম জটিল গেম খুব কম খেলেছি।

সিলেটের এক ডিভিডির দোকানে প্রথম গেমটা দেখি। দেখে তেমন ভালো লাগেনি, কিন্তু আমার যে বন্ধুটি সাথে ছিল সে বলল, “এই গেম IGNএ ৯.৫ রেটিং পেয়েছে ১০ এর মধ্যে” জটিল ব্যাপার!! যে IGN রেটিং এর ব্যাপারে এত্তো কিপটা, সেই IGN এই গেমকে দিয়ে দিয়েছে সাড়ে নয়!!!!!

গেমের যে জিনিসটা সবচাইতে ভাল, সেটা হল গেমে টানা দশমিনিটও মুখ গোমরা করে রাখার উপায় নেই। গেমের ক্যারেকটারগুলো কথাবার্তাগুলোই সাজানো হয়েছে প্লেয়ারদের অনেক মজা দেয়ার জন্য। সব ক্রেডিট স্ক্রিপ্ট-রাইটারদের। আমার সেন্স অফ হিউমার একটু কম, তাই হাসি চেপে খেলেছি। কারো কারো হাহাপগে হতে পারে। আবার খুবই বেরসিক (যদিও বেরসিক গেমার এখনো দেখিনি আমি) কেউ জোকের মাথামুন্ডু না বুঝে সিরিয়াস ভাব নিয়ে বিস্তারিত পড়ুন